বুকের বাহিরে হৃৎপিণ্ড নিয়ে জন্মেও বাঁচলো শিশু


শুক্রবার,১৫/১২/২০১৭

ডেস্ক রিপোর্টঃ দেহের বাহিরে হৃৎপিণ্ড নিয়ে জন্মানো শিশুকে সফল অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনলেন ইংলান্ডের একদল চিকিৎসক। লিস্টারের গ্লেনফিল্ড হাসপাতালের চিকিৎসকরা অস্ত্রোপচার করে হৃৎপিণ্ড স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনার পর শিশুটি এখন দিব্যি বেঁচে আছে।

সবার হৃৎপিণ্ড থাকে বুকের খাঁচার ভেতর, কিন্তু সম্প্রতি ইংল্যান্ডের ল্যাস্টারে জন্ম নেওয়া শিশু ‘ভেনালপ হোপ উইল্কিনস’ এর হৃৎপিণ্ড ছিল দেহের বাইরে। উন্মুক্ত অবস্থায় তিন সপ্তাহ আগে সিজারের মাধ্যমে পৃথিবীর মুখ দেখে ওই কন্যা শিশুটি।

শিশুটির বুকের কোনও হাড় ছিল না। বাইরে থাকা হৃৎপিণ্ডটিকে সঠিক স্থানে প্রতিস্থাপন করতে চিকিৎসকরা তিনবার অস্ত্রোপচার করেন।

‘একটোপিয়া কর্ডিস’ নামক জটিল ও বিরল জন্মগত সমস্যা নিয়ে জন্মেছিল বলে জানিয়েছে চিকিৎসকেরা। জন্ম নেওয়া লাখ লাখ শিশুর মধ্যে খুব কম ক্ষেত্রেই এ রোগ দেখা যায়।

আর যুক্তরাজ্যে এমন সমস্যা নিয়ে জন্মানো কোনও শিশুর বেঁচে যাওয়ার এমন আর কোনও ঘটনা আছে কিনা- তাও জানা নেই বলে জানিয়েছে গ্লেনফিল্ড হাসপাতাল।

মায়ের গর্ভে থাকার সময়ই শিশুটির হৃৎপিণ্ড বুকের খাঁচার বাইরে বেড়ে উঠেছে। উইল্কিনসের মা তার শিশুকন্যার জটিল এ সমস্যার কথা তার গর্ভকালীন নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার সময়ই জেনেছিলেন। ফলে জন্মের পর তার মৃত্যুর আশঙ্কা নিয়েই সন্তান জন্ম দেন তিনি।

জন্মের পর ৫০ মিনিটের মধ্যেই চিকিৎসকরা শিশুটির প্রথম অস্ত্রোপচার করেন। এরপর আরও দুটি অস্ত্রোপচার তাকে নতুন জীবন দিতে সক্ষম হন চিকিৎসকরা।

যুক্তরাজ্যের মত এমন আরও কয়েকটি ঘটনা এর আগে ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে।

এর মধ্যে ২০১২ সালের অক্টেবরে হিউস্টন শহরে জন্ম নেয়া শিশু ‘অডরিনা’র ঘটনাটিও একইরকম। শরীরের বাইরে উন্মুক্ত হৃৎপিণ্ড নিয়েও দিব্যি বেঁচে যায় শিশুটি।

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

জানা অজানা

সাহিত্য / কবিতা

সম্পাদকীয়